অর্জুন ছালের গুড়া খাওয়ার নিয়ম - অর্জুন গাছের ছাল ভিজিয়ে খাওয়ার উপকারিতা

প্রিয় পাঠক আপনি যদি অর্জুন ছালের গুড়া খাওয়ার নিয়ম - অর্জুন গাছের ছাল ভিজিয়ে খাওয়ার উপকারিতা এই সম্পর্কে জানার জন্য আমাদের ওয়েবসাইটে এসে থাকেন তাহলে আপনি সঠিক কাজ করেছেন
অর্জুন ছালের গুড়া খাওয়ার নিয়ম - অর্জুন গাছের ছাল ভিজিয়ে খাওয়ার উপকারিতা
আপনি সঠিক জায়গায় এসেছেন এখানে আমরা অর্জুন ছালের গুড়া খাওয়ার নিয়ম - অর্জুন গাছের ছাল ভিজিয়ে খাওয়ার উপকারিতা এই সম্পর্কে গুরুত্বপূর্ণ তথ্য দেওয়ার চেষ্টা করব যদি আপনি গুরুত্বপূর্ণ তথ্য পেতে চান তাহলে সূচিপত্র দেখে ওয়েবসাইটটি ভিজিট করুন

সূচিপত্রঃ অর্জুন ছালের গুড়া খাওয়ার নিয়ম - অর্জুন গাছের ছাল ভিজিয়ে খাওয়ার উপকারিতা

  • অর্জুন গাছ কি
  • অর্জুন গাছের ছালের উপকারিতা
  • অর্জুন গাছের ছালের অপকারিতা
  • অর্জুন ছালের গুড়া খাওয়ার নিয়ম
  • অর্জুন গাছের ছাল ভিজিয়ে খাওয়ার নিয়ম
  • উপসংহার

অর্জুন গাছ কি

প্রিয় পাঠক অর্জুন গাছ সম্পর্কে আমরা সকলেই জানি অবহিত রয়েছি অর্জুন আসলে এটা বৈজ্ঞানিকদের দেওয়া একটি নাম বৈজ্ঞানিকরা বলে থাকেন টার্মিনালিয়া অর্জুন এই গাছটি ২০ থেকে ২৫ মিটার উঁচু হতে পারে এ গাছের ফল লম্বা হয় এবং এই গাছে ফল আসে মার্স এবং জুন মাসের মধ্যে এটা একটি ওষধি গাছ এই গাছ দ্বারা বহু রোগের ঔষধ তৈরি করা হয় বিস্তারিত জানার জন্য নিচে দেখুন

অর্জুন গাছের ছালের উপকারিতা

প্রিয় পাঠক নিশ্চয়ই আপনি জানতে চাইছেন অর্জুন গাছের ছালের উপকারিতা এবং অপকারিতা এখন আমি আপনাদেরকে অর্জুন গাছের কি কি উপকারি গুণ রয়েছে সে সম্পর্কে বলবো তো চলুন জানা যাকঃ
  • অর্জুন গাছ এটি হৃদরোগের চিকিৎসার জন্য ব্যবহার করা হয়
  • অর্জুন গাছের ছাল রক্তের উচ্চমাত্রা কমিয়ে দেয়
  • অর্জুনের গাছের ছালের মাধ্যমে কোলেস্টেরলের মাত্রা কমে যায়
  • যাদের চুল উঠে যায় তাদের জন্য অর্জুনের গাছের ছাল অত্যন্ত জরুরী আপনার মাথার মধ্যে অর্জুন গাছের ছাল দিবেন এবং হেনার মিশ্রণ দুইটা লাগিয়ে ফেলবেন এবং যদি আপনার চুলটা সাদা হয়ে থাকে তাহলে এভাবে যদি আপনি কিছুদিন ব্যবহার করতে পারেন তাহলে আপনার সাথে চুলটা কালো হবে ইনশাল্লাহ আর যদি আপনার চুলটা শক্তিশালী না হয় অর্থাৎ অতি তাড়াতাড়ি উঠে যায় তাহলে এভাবে ব্যবহার করলে আপনার চুলটা শক্তিশালী হবে
  • যাদের শুষ্ক কাশি রয়েছে সেক্ষেত্রে অর্জুন গাছের ছাল ব্যবহার করা হয় অর্জুন গাছের ছাল পাউডার করতে হবে এবং এরপরে তাজা সবুজ পাতার সাথে অর্থাৎ পাতার রসের সাথে মিশিয়ে শুকাতে হবে এরপর সেটাকে চূর্ণ করতে হবে যে রোগীর কাশির সমস্যা তাকে মধুর সঙ্গে মিশিয়ে খাওয়াতে হবে ইনশাল্লাহ কাশি দূর হয়ে যাবে
  • আমরা অনেকেই মেদ নিয়ে ভাবছি অর্থাৎ আমাদের ভুরি বেড়ে গেছে চিন্তা নেই আমি আপনাকে কিভাবে এই গাছের ছালের মাধ্যমে আপনি আপনার মেদকে কন্ট্রোলে নিয়ে আসবেন সেটা বলবো যে মানুষের মেদের সমস্যা তাকে অর্জুন গাছের ছাল সকাল এবং সন্ধ্যায় খেতে হবে তাহলে দেখবেন এক মাসের মধ্যে আপনার পেটের মেদ কমে গেছে
  • যাদের সুগার রয়েছে তারা চিন্তা করছেন কিভাবে ভালো করবেন আমি আপনাদেরকে সুখার মনে হচ্ছে মেহরর রোগ অর্থাৎ মধুমেহ এর আগে যারা ভুগছেন তারা অর্জুন গাছের ছাল দিয়ে তাদের এই কঠিন সমস্যা দূর করতে পারবেন এর জন্য আপনাকে অর্জুন গাছের ছালের পাউডার করতে হবে এবং বেশি জাম এর বিচির চূর্ণ একসাথে মিশিয়ে ঘুমাতে যাওয়ার আগে হালকা গরম পানি এর সাথে মিশিয়ে পান করবেন এটা হল প্রথম পন্থা দ্বিতীয় পন্থা হলো অর্জুন গাছের ছাল এবং কদম ফুলের গাছের ছাল এবং জামুন গাছের ছাল একসাথে মিশিয়ে ভালোভাবে সুন্দরভাবে পাউডার করবেন এবং এটা সকালবেলায় পান করবেন তিন সপ্তাহ ধরে এভাবে করলে আশা করি আপনি নেহরোগ থেকে মুক্তি পাবেন
  • আমাদের যাদের ত্বকের সমস্যা রয়েছে তাদের জন্য অর্জুন গাছের ছাল খুবই উপকারী বস্তু অর্জুন গাছের ছাল বাদাম এবং হলুদ এবং বাজারে কর্পূর পাওয়া যায় সেটাকে একসাথে মিশিয়ে আপনার ত্বকের সঙ্গে লাগিয়ে নিন এভাবে কিছুদিন লাগানোর পর দেখবেন আপনার ত্বকের সমস্ত সমস্যা ব্রণ দূর হয়ে গেছে
  • আমাদের মুখে অনেক সময় বিভিন্ন ধরনের ফোসকা পড়ে যাদের মুখে এই ফোসকা রয়েছে তারা চিন্তা করবেন না তাদের জন্য রয়েছে অর্জুন গাছের ছাল অর্জুন গাছের ছাল এবং নারকেলের তেল একসাথে মিস করে আপনার মুখের ফুসকার উপরে লাগাবেন অবশ্যই আপনি সেখান থেকে আরোগ্য হবেন অথবা আপনি উভয়ের মিশ্রণ এবং হালকা গুড় একসাথে মিশিয়ে খেলে যদি আপনার মারাত্মক জ্বর হয়ে থাকে তাহলে সেখান থেকে পরিত্রাণ পাবেন
  • আমাদের অনেকে রয়েছি প্রস্রাব ঠিক মতন হয় না বা প্রসাবের সমস্যা হয়েছে এমন ব্যক্তির জন্য অর্জুন গাছের ছাল অত্যন্ত জরুরী অর্জুন গাছের ছাল এবং পানি উভয় মিস করেন কিছুক্ষণ গরম করবেন যখন অর্ধেক হয়ে যাবে পানি তখন তার ঠান্ডা করতে হবে এরপর সেটাকে পান করতে হবে দেখবেন আপনার পেশাবের সমস্ত সমস্যা দূর হয়ে গেছে
  • আমাদের অনেকের রয়েছে প্রদাহ হ্রাস পেয়েছে তাদের জন্য রয়েছে অর্জুন গাছের ছাল অর্জুন গাছের ছাল এবং মিহি ৫ থেকে ১০ গ্রাম একসাথে মিশিয়ে রোগীকে খাওয়াতে পারবেন খাওয়ালে কার্ডিওভাস কুলার যে রোগটি রয়েছে পাশাপাশি হৃদরোগের সমস্যা দূর হয়ে যায়
  • এছাড়া অর্জুন গাছের আরো নানান গুণাগুণ রয়েছে যেমন ধরুন অর্জুন গাছের ছাল খেলে আপনার হৃদয়ের স্টক কমায় এবং হার্টের রোগীর জন্য অনেক উপকারী যারা হার্টের রোগী রয়েছেন তারা পেঁয়াজ এবং অর্জুন গাছের ছাল একসাথে মিশিয়ে চূর্ণ করে নিয়মিত খেলে এবং সাথে দুধ যোগ করতে হবে তাহলে আপনার হৃদ রোগ থেকে পরিত্রান পাবেন

আরো পড়ুনঃ লজ্জাবতী গাছের উপকারিতা

অর্জুন গাছের ছালের অপকারিতা

প্রিয় পাঠক একটা জিনিসের যেমন উপকারী দিক রয়েছে তেমনি তার অপকারি দিয়ে রয়েছে অর্জুন গাছের যে সমস্ত অপকারিতা দিক রয়েছে সে সম্পর্কে এখন আমি আপনাদেরকে অবহিত করব তো চলুন জানা যাকঃ
  • সর্বপ্রথম চিকিৎসকের পরামর্শ অনুযায়ী আপনি অর্জুন গাছের ছাল ব্যবহার করবেন যতটুকুন দরকার
  • এই অর্জুন গাছের ছাল যারা গর্ভবতী মহিলা রয়েছেন তাদের জন্য খুবই ক্ষতিকারক
  • যারা মেহের রোগী রয়েছেন অর্থাৎ যাদের সুগার রয়েছে তারা এই অর্জুন গাছের ছালটি ব্যবহারের ক্ষেত্রে খুবই সাবধানতা অবলম্বন করবেন

অর্জুন ছালের গুড়া খাওয়ার নিয়ম

প্রিয় পাঠক আপনি অনেকে ভাবছেন যে অর্জুন গাছের ছালের গুড়া কিভাবে খাব কতটুকু খাব দেখুন এর গুড়া খেতে হলে এর রোগটা আগে নির্ণয় করতে হবে সেজন্য আমি আপনাদেরকে বলবো আপনারা আমার ওপরের বর্ণিত নিয়ম অনুযায়ী আপনাদের যে রোগ রয়েছে সে রোগের ততটুকুন গুড়া খাবেন এছাড়াও অর্জুন গাছের ছালের গুড়া খাওয়ার জন্য অভিজ্ঞ চিকিৎসকের পরামর্শ নিন

আরো পড়ুনঃ গনোরিয়া রোগের চিকিৎসা

অর্জুন গাছের ছাল ভিজিয়ে খাওয়ার নিয়ম

অর্জুন গাছের ছাল ভিজিয়ে খাওয়ার নিয়ম সম্পর্কে জানতে চাইলে এ লেখাটি শুধু আপনার জন্য যাদের রয়েছে শারীরিক এবং মানসিক দুর্বলতা তারা রাত্রিবেলায় অর্জুন গাছের ছাল ভিজিয়ে রাখবেন এবং সকালে সেই ছাল নিংড়ানোর পর যে রস বের হয়েছে ওই রস পান করবেন এতে করে আপনার দেহের ক্লান্তি এবং শারীরিক এবং মানসিক দুর্বলতা দূর হয়ে যাবে

উপসংহার

প্রিয় পাঠক এতক্ষণ আপনারা অর্জুন ছালের গুড়া খাওয়ার নিয়ম - অর্জুন গাছের ছাল ভিজিয়ে খাওয়ার উপকারিতা এই সম্পর্কে জানতে পারলেন যদি আপনার এখান থেকে উপকৃত হয়ে থাকেন তাহলে আমাদের ওয়েবসাইটটি ফলো করে দেন এবং আপনার বন্ধু বান্ধবের মাঝে কবে লিংকের মাধ্যমে শেয়ার করুন ধন্যবাদ

এই পোস্টটি পরিচিতদের সাথে শেয়ার করুন

পূর্বের পোস্ট দেখুন পরবর্তী পোস্ট দেখুন
এই পোস্টে এখনো কেউ মন্তব্য করে নি
মন্তব্য করতে এখানে ক্লিক করুন

অর্ডিনারি আইটির নীতিমালা মেনে কমেন্ট করুন। প্রতিটি কমেন্ট রিভিউ করা হয়।

comment url