পুরুষদের জন্য আদার উপকারিতা - আদার গুনাগুন ও উপকারিতা

প্রিয় পাঠক আমরা অনেকেই অনেক সময় আদা খেয়ে থাকি অথবা আমাদের এমন কোন সমস্যা রয়েছে যা আমরা কোন ভাবেই কোন চিকিৎসাতে ভালো করতে পারছি না কিন্তু আমাদের হাতের কাছে এমন জিনিস রয়েছে যা আমাদের হাতের কাছে থাকা সত্ত্বেও আমরা সেটা থেকে উপকার পাচ্ছি না
পুরুষদের জন্য আদার উপকারিতা - আদার গুনাগুন ও উপকারিতা
যে আমি আদার কথাই বলছি আদা এমন একটি উপকারী বস্তু যা মানব দেহে অনেক কাজে দেয় অনেক উপকারে আসে এজন্য আপনারা যদি আদার পরিপূর্ণ তথ্য পেতে চান তাহলে আপনারা ধৈর্য সহকারে আমাদের ওয়েবসাইট পরিপূর্ণভাবে পড়ে ফেলুন

সূচিপত্রঃপুরুষদের জন্য আদার উপকারিতা - আদার গুনাগুন ও উপকারিতা

  • প্রচলিত নাম
  • বৈজ্ঞানিক নাম
  • ব্যবহৃত অংশ
  • রাসায়নিক উপাদান
  • প্রধান কাজ
  • অনন্য উপকরণ
  • ক্ষুধা ও রুচি বৃদ্ধিতে ব্যবহার করা হয়
  • গর্ভবতীর বমি ও বমি বমি ভাব দূর করার জন্য ব্যবহার করা হয়
  • মলাশয় ও ডিম্বাশয় এর ক্যান্সার প্রতিরোধের জন্য ব্যবহার করা হয়
  • রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বৃদ্ধিতে ব্যবহার করা হয়
  • প্রদাহ প্রতিরোধী হিসেবে কাজ করে
  • যাদের খোদা মন্দ রয়েছে তাদের জন্য উপকারী
  • রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বৃদ্ধিতে ব্যবহার করা হয়
  • কানের ব্যথায় ব্যবহার করা হয়
  • বাত ব্যথা ও সন্ধি বেদনা দূর করার জন্য ব্যবহার করা হয়
  • সেবন করার নিয়ম
  • সর্তকতা
  • লেখকের শেষ কথা

প্রচলিত নাম

প্রচলিত নাম হলো আদা এটা আমরা সকলেই জেনে থাকি

বৈজ্ঞানিক নাম

আমরা যে জিনিসটাকে আধা হিসেবে চিনি সেটাকে বিজ্ঞানীরা নাম দিয়েছেন: zingiber officinale rosc

ব্যবহৃত অংশ

ব্যবহারিত অংশ যা আমরা ব্যবহার করতে পারব সে বিষয়টা আমি আপনাদেরকে বলবো আদার কন্ধ রাইজোম /কান্ড এতটুকু অংশ আপনারা ব্যবহার করতে পারবেন

রাসায়নিক উপাদান

জিনজের অল 5,3-8,6% সোগা অল, প্যারাডল, এন্টিঅক্সিডেন্ট

প্রধান কাজ

আদা আমরা সকলেই চিনি কিন্তু এটা কোন কোন রোগের জন্য ব্যবহার করা হয় সে সম্পর্কে অনেকেরই অজানা রয়েছে আমি আপনাদেরকে সে সম্পর্কে এখন বলব

বমি প্রতিরোধক /ক্ষুধাবর্ধক/কফ নিরাশক/ক্যান্সার প্রতিরোধ করে

অনন্য উপকরণ

আদা এমন একটি বস্তু প্রিয় পাঠক এটা দিয়ে আপনি অন্ত্রনালীর সাথে সাদৃশ্যপূর্ণ তাই অন্ত্রনালীর বিভিন্ন সমস্যা যেমন ধরুন পেট ফাঁপা বদহজম ক্ষুধা মন্দা ইত্যাদি দূর করার জন্য সহযোগী হয়

ক্ষুধা ও রুচি বৃদ্ধিতে ব্যবহার করা হয়

প্রিয় পাঠক অনেকে রয়েছি যাদের কোন কিছু খেতে রুচি হয় না ক্ষুধা মন্দা যাকে বলা হয় তাদের জন্য আদা অত্যন্ত সহায়ক সে বিষয়টা এখন আমি আপনাদেরকে বলবো

যদি আপনাদের ক্ষুধা এবং রুচির কোন সমস্যা থাকে তাহলে আপনারা খাবারের পূর্বে সন্দেহ লবণসহ আদা চিবাবেন তাহলে ক্ষুধা ও রুচি অবশ্যই বৃদ্ধি পাবে কাটা আদার সাথে সামান্য পরিমাণ সৌন্দর লবণ বা বিট লবণ মিশিয়ে আহারের পর দিনে দুইবার 15-20 দিন নিয়মিত খেলে পাকস্থলীর শক্তি এবং হজম শক্তি বৃদ্ধি পায়

গর্ভবতীর বমি ও বমি বমি ভাব দূর করার জন্য ব্যবহার করা হয়

যে সমস্ত আমাদের মা-বোনেরা রয়েছেন তাদের যখন গর্ভ অবস্থা হয় বিভিন্ন ধরনের বমি হয়ে থাকে তো তাদের এই বমি দূর করার জন্য কিছু টেকনিক বলে দেব

গর্ভবতী মায়ের একটি বড় সমস্যা হল সে কোন খাবার গ্রহণের পরেই বমি ভাব হয় এবং কোন কোন সময় বমিও করে বমি বন্ধ করার জন্য এবং বমির ভাবকে দূর করার জন্য অনেক কার্যকরী

মলাশয় ও ডিম্বাশয় এর ক্যান্সার প্রতিরোধের জন্য ব্যবহার করা হয়

প্রিয় পাঠক অনেকেই মলাশয় অর্থাৎ মলদ্বারে অথবা ডিম্বাশয় ক্যান্সার হয়ে থাকে তাদেরকে আমি একটি ছোট্ট একটি টোটকা শিখিয়ে দেব যেটার মাধ্যমে এ সমস্ত রোগের সম্মুখীন হওয়া লাগবে না ইনশাআল্লাহ

আদায় বিদ্যমান জিনজার অল ডিম্বাশয়ের ক্যান্সার দূর করার জন্য কার্যকরী ও ডিম্বাশয় ক্যান্সার কোষ ধ্বংস করার জন্য কাজে আসে রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বৃদ্ধি করে

রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বৃদ্ধিতে ব্যবহার করা হয়

রোগ প্রতিরোধ করার জন্য অর্থাৎ রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বৃদ্ধি করার জন্য আদা ব্যাপক ভূমিকা রাখে কারণ এদের মধ্যে রয়েছে অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট এবং ফ্রি রেডিকেল শত্রু ধ্বংস করে শরীরের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বৃদ্ধি করে

প্রদাহ প্রতিরোধী হিসেবে কাজ করে

প্রদাহ প্রতিরোধ হিসেবে আধুনিক গবেষণা হতে জানা যায় যে আদায় জিনজির অল নামক সক্রিয় জৈব রসায়নিক উপাদান আছে যা প্রদাহ প্রতিরোধে খুবই কার্যকরী অর্থাৎ যাদের পুড়ে যায় এবং পুড়ে যাওয়ার কারণে ব্যথা হয় এমন সমস্ত ব্যথাগুলিকে এ আদার রস ব্যবহার করার কারণে ভালো হয়ে যায় শুধু তাই নয় বার্ধক্য জনিত বাতাও আদা খুবই কার্যকরী ভূমিকা পালন করে গবেষণা হতে আরও জানা যায় আদার বিদ্যমান সক্রিয় উপাদান প্রদাহ সৃষ্টিকারী নিউক্লিয়ার ফ্যাক্টর কাপ্পা বি সাইক্লো অক্সিজেন এবং লাইপোক্সিজেনস এর কার্যকারিতা বন্ধ করার মাধ্যমে সন্ধি প্রদাহ বাত ব্যথা নিরাময় ও প্রতিরোধ করে থাকে

যাদের খোদা মন্দ রয়েছে তাদের জন্য উপকারী

প্রিয় পাঠক অনেকের আমরা রয়েছি যারা কোন কিছু খেতে পারি না অর্থাৎ খেতে ভালো লাগে না তাদের জন্য খাওয়ার আগে সৌন্দর লবণ দিয়ে একটু আদা চিবিয়ে খাবেন দেখবেন আপনার ক্ষুধা আগের তুলনায় বেড়ে যাবে মুখের বিরসতা জিভের জড়তা ও গলার কফ দূর হয়ে যাবে

রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বৃদ্ধিতে ব্যবহার করা হয়

এছাড়াও প্রিয় পাঠক আরো আধা বহু কাজে ব্যবহার হয় যেমন ঠান্ডা ও সর্দি যদি কারো হয়ে থাকে তাহলে আদাব মাধ্যমে সেখান থেকে নিরাময় হওয়া যায় এছাড়াও ব্যাকটেরিয়া ছত্রাক ও রোগ জীবাণু প্রতিরোধে কার্যকর ভূমিকা পালন করে এই আদা

কানের ব্যথায় ব্যবহার করা হয়

প্রিয় পাঠক আমাদের মধ্যে অনেকে রয়েছে যাদের প্রাণের সমস্যা রয় কানে ব্যথা করে তাদের জন্য তিন চার ফোটা আদার রস অল্প গরম করে প্রতিদিন দুই থেকে তিনবার ২ থেকে ৪ দিন সেবন করলে কানের ব্যথা আরাম হয়ে যাবে

বাত ব্যথা ও সন্ধি বেদনা দূর করার জন্য ব্যবহার করা হয়

আদার রসের সাথে ৫০ গ্রাম আদা কুটার রসুন 200 মিলি সরিষার তেল মিশিয়ে মৃদু তাপে জল করে যখন পানি বাষ্পায়িত হয় কেবল তেল অবশিষ্ট থাকবে তখন চোরা থেকে নামিয়ে ছেঁকে নিয়ে আক্রান্ত স্থানের প্রতিদিন ২ থেকে ৩ বার মালিশ করতে হবে এটা অন্তত ১৫ থেকে ২০ দিন মালিশ করতে হবে তাহলে বাত ব্যথা থেকে আরাম পাওয়া যাবে আরও যে ধরনের ব্যথাগুলি রয়েছে সেই ব্যাথা থেকেও আরাম পাওয়া যাবে

সেবন করার নিয়ম

এতক্ষণ আমরা আদা সম্পর্কে বিভিন্ন তথ্য জানতে পারলাম কিন্তু এটাকে কিভাবে সেবন করব সে বিষয়টা আমরা জানি না এখন আমি আপনাদেরকে সে বিষয়টা বলব

আদা কুচি বা আদার রস দুই থেকে তিন চা চামচ

দিনে 8 থেকে 10 বার অল্প পরিমাণ মুখে দিয়ে চুষে খেতে হবে অথবা যেই চিকিৎসকের কাছে আপনি চিকিৎসা করবেন তারপরামত অনুযায়ী সেবন করতে হবে

সর্তকতা

প্রিয় পাঠক একটি জিনিসের যেমন ভালো দিক রয়েছে তেমন তার খারাপ দিক রয়েছে সেজন্য আদা এত বেশি পরিমাণে খাওয়া যাবেনা যাতে করে আপনার কোন সমস্যা হয় যেমন ধরুন মাথা ব্যাথা হতে পারে বেশি পরিমাণ আদা খেলে এজন্য পরিমিতভাবে খাবেন

লেখকের শেষ কথা

কে পাঠক এতক্ষণ আপনারা পুরুষদের জন্য আদার উপকারিতা এবং আদার গুনাগুন এবং মহিলাদের জন্য আদার গুনাগুন সবকিছু জানতে পারলেন যদি আপনার এখান থেকে উপকৃত হয়ে থাকেন আপনার বন্ধু-বান্ধবের মাঝে কফিলিং এর মাধ্যমে শেয়ার করবেন এবং আমাদের ওয়েবসাইটটি ফলো করে দিবেন যাতে করে পরবর্তীতে নোটিফিকেশন পেতে পারেন ধন্যবাদ

এই পোস্টটি পরিচিতদের সাথে শেয়ার করুন

পূর্বের পোস্ট দেখুন পরবর্তী পোস্ট দেখুন
এই পোস্টে এখনো কেউ মন্তব্য করে নি
মন্তব্য করতে এখানে ক্লিক করুন

অর্ডিনারি আইটির নীতিমালা মেনে কমেন্ট করুন। প্রতিটি কমেন্ট রিভিউ করা হয়।

comment url